1. [email protected] : mahi :
  2. [email protected] : Kaler Kollol : Kaler Kollol
  3. [email protected] : saniur rahman : saniur rahman
  4. [email protected] : Saiful Islam : Saiful Islam
শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন পথচলার ৩৬ বছর পার করলো জেলা ছাত্র মৈত্রীর মানববন্ধন শারদীয় দূর্গা উৎসবের পাঁচ দিনের ছুটির দাবীতে এশিয়া প্যাসিফিকের ছাত্রদের মানববন্ধন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্র মৈত্রী’র শিক্ষা দিবস পালন অবিলম্বে পাঁচ দফা দাবি বাস্তবায়নের আহবান শিক্ষাখাতে বাজেটের ২৫% , জিডিপির ৮% বরাদ্দ ও প্রাইভেট ভার্সিটির উপর ১৫% ভ্যাট বাতিলের দাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ছাত্র মৈত্রী’র মানববন্ধন হেফাজতের ধ্বংসযজ্ঞ: মামলা না নিলে আদালতে যাবেন এমপি মোকতাদির চৌধুরী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি সাতক্ষীরা কলারোয়ায় শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলা, দোষীদের শাস্তির দাবিতে জেলা আ’লীগের মানববন্ধন দোষ স্বীকার করে জবানবন্দিতে যা বললেন লিয়াকত এইচ এস সি পরীক্ষার গুজবে কান না দেওয়ার আহবান শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের
শিরোনাম
বাংলাদেশ কংগ্রেস’র বিবৃতি নির্বাচন কমিশনার গঠন আইন সংবিধান পরিপন্থী উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন পথচলার ৩৬ বছর পার করলো শাহবাজপুরে স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনার টিকাদান শুরু জেলা ছাত্র মৈত্রীর মানববন্ধন ঘাটুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোট দিতে এলেন ১০৮ বছর বয়সী খোদেজা বেগম সুহিলপুর ইউপি নির্বাচনে জয়ী হয়ে মডেল ইউপি গড়তে চান আব্দুর রশিদ ভূঁইয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন টিকিট কালোবাজারির জয় জয়কার,২৩০ টাকার টিকেট বিক্রি হচ্ছে ৬৫০টাকায় ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী গোলাম নওজব চৌধুরীর মনোনয়ন বৈধ হলো টাংগাইলে মির্জাপুরের উপনির্বাচনে ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনয়ন পেলেন পাওয়ার চৌধুরী সারাদেশে গণ পরিবহনে হাফ ভাড়ার দাবীতে জেলা ছাত্র মৈত্রীর মানববন্ধন

দেশরত্নের অকুতোভয় সৈনিক ছাত্রলীগের প্রত্যয়

  • রবিবার, ২৮ জুন, ২০২০
  • ৩৫৪ বার পড়া হয়েছে

রিয়াদুল ইসলামঃ

 

সানজিদ আল প্রত্যয়, শেরপুর জেলা ছাত্রলীগের এক পরিচিত ও পরিশ্রমি মুখ। রাজনৈতিক পরিবার থেকে তার উত্থান। দাদা আইজউদ্দিন মাস্টার খ্যাতিমান শিক্ষক। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন রনাঙ্গনের যোদ্ধাদের সাহায্য করেছেন কাছে থেকে। দাদা তার ছোট ভাই আখতার হোসেন কে পাঠান যুদ্ধে, দেশ মুক্ত করতে যুদ্ধরত অবস্থায় হানাদার দের হাতে শহীদ হোন আখতার।

প্রত্যয়ের বাবা মাহাবুব রানা ছিলেন শেরপুর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি, ছিলেন জেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ছিলেন। বর্তমানে পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দায়িত্বরত।

সেই ছোট থেকে বুঝবান হওয়ার পর থেকেই দাদার কাছে এসব যুদ্ধের গল্প শুনতো প্রত্যয়। ছেলেবেলায় বাসায় আওয়ামীনেতাদের যাতায়াত দেখে তাদের কাছেও ছুটে যেতো মাঝে মাঝে বিভিন্ন প্রশ্ন নিয়ে।

এসব প্রশ্ন আর উত্তরের কষাকষিতেই থেমে ছিলো না সে। মনে মনে পণ করে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তির হাতকে শক্তিশালী করতে মাঠে কাজ করবে বড় হয়ে। দাদা মারা যাওয়ার পর জেলা মহিলা সংস্থার সভানেত্রী দাদীর হাত ধরে বিভিন্ন নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়ে বেড়ায় বাড়িতে বাড়িতে।

মাঠ পর্যায়ের রাজনীতিতে অংশ নেওয়া হয় প্রত্যয়ের স্কুল জীবনে ২০০৮ এর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে, এলাকায় আওয়ামী ভাইদের সাথে ছিলেন অপশক্তির হাত থেকে কেন্দ্র পাহাড়া ও রক্ষা করতে, ছিলেন বিজয় মিছিল পর্যন্ত। এখান থেকে তার শুরু বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার জন্য মাঠে কাজ করা।এভাবে দিনের পর দিন মাঠ পর্যায়ে একটিভ হয়ে যায় বিভিন্ন মিছিল মিটিংয়ে উপস্থিতির মাধ্যমে।

পিছন থেকে স্লোগান ধরা প্রত্যয় কিছুদিনের মাঝেই নিজের ত্যাগ তিতিক্ষার মাধ্যমে চলে আসেন সামনের কাতারে এবং নিজেই বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা, ছাত্রলীগের পক্ষে স্লোগান দেওয়া শুরু করে মিছিলে মিছিলে।রাতদিন ছাত্রলীগের বিভিন্ন প্রোগ্রামে উপস্থিত হতো, নেতাদের সাথে টঙের এক কাপ চা তেই ক্ষিধা মিটাতেন মাঝে মাঝে। এভাবে মাঠপর্যায়ে কাজ করে সবার নজরে আসে প্রত্যয়।

২০১৩ সালে শেরপুর জেলা ছাত্রলীগের পূর্নাঙ্গ কমিটিতে পদ পেয়ে যায় ‘উপ গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক’হিসেবে। এর পর থেকে ছাত্রলীগের প্রতি তার ত্যাগ আরো বেড়ে যায়। তার ছাত্ররাজনীতির হাতেখড়ি দেওয়া সভাপতি জুনায়েদ নূরানি মনির সাথে বিভিন্ন মিছিল মিটিংয়ের নেতৃত্বে আরো কর্মঠ হয়ে উঠে। ২০১৪ সালে জামায়াত বিএনপির অগ্নিসন্ত্রাস রুখতে সর্বদা মাঠে তৎপর ছিলেন।সবসময় নির্যাতীত নেতাকর্মীদের পাশে থাকতো।দশম সংসদ ও একাদশ সংসদ নির্বাচনে শেরপুরের বিভিন্ন কেন্দ্র ও স্থানে আওয়ামীলীগকে জেতাতে নিরলস ভাবে কাজ করে যায়।এরপর বিভিন্ন মিছিল সংগ্রামে সর্বদা ছাত্রলীগের হয়ে আওয়ামিলীগের পক্ষে মাঠে কাজ করে যায়।

বিভিন্ন এলাকায় ছাত্রলীগের কর্মী তৈরির পাশাপাশি মানবিকগুন সম্পন্ন প্রত্যয় কারো অসহায়ত্বের খবর পেলেই ছুটে যান সেই ব্যাক্তির কাছে, নিজে সাধ্যমত সহায়তা করেন আর নেতাদের অনুরোধ করেন সহায়তার ব্যবস্থা করেন। দূর্ঘটনা ও অসুস্থতাজনিত কেউ রক্তের প্রয়োজনে যোগাযোগ করলে ছুটে যান জীবন বাচাতে গ্রুপ মিলে গেলে সেই দেয় বা অন্য গ্রুপের হলে ডোনারও যোগাড় করে দেয়। অসহায় ছাত্রদের নিজের অর্থায়নে বইও কিনে দেন।

কিছুদিন আগে আওয়ামীলীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গরীব অসহায় কৃষক দের ধান কেটে দেওয়ার কর্মসূচি গ্রহন করেন। এই কর্মসূচিতে জেলা ছাত্রলীগের সহযোদ্ধাদের সাথে নিয়ে প্রত্যয় ছুটে যান শেরপুরের বিভিন্ন এলাকায় ধান কাটতে। ধান কেটে দেন সদরের বাজিতখিলা, পাকুরিয়া, লসমুনপুর এলাকায়। ধান কেটে দিয়ে আসেন সদরের বাইরে ঝিনাইগাতি উপজেলার এক প্রান্তিক কৃষকের।

সানজিদ আল প্রত্যয় বলেন,”আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। আমার দাদার নেতা ছিলেন বঙ্গবন্ধু। আর বর্তমান প্রজন্মে আমার নেতা বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা। বিগত দিনে যেমন দলের জন্য কাজ করেছি সামনেও করতে চাই। আমি ছোট বেলা থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত। ফলশ্রুতিতে দলের প্রয়োজনে পাশে থাকার আপ্রান চেষ্টা করেছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার পথ নির্দেশনায় ছাত্রলীগের সহযোদ্ধাদের সাথে নিয়ে নিঃসার্থভাবে সর্বদা কাজ করে যেতে চাই।”

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন